শুরু হোক ‘সাইবার ক্যাফে’ দিয়ে

শুরু হোক ‘সাইবার ক্যাফে’ দিয়ে

মো. সাইফ : যেকোনো ধরনের ব্যবসায় ঝুঁকি থাকবেই। তবে অনেকেই চান এমন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান দিয়ে শুরু করতে যেটি হবে তুলনামুলক কম ঝুঁকিপূর্ণ। কম ঝুঁকির ব্যবসায় হিসেবে ‘সাইবার ক্যাফে’ ব্যবসা হতে পারে তাদের জন্য স্বাবলম্বী হওয়ার একটি দারুণ অবলম্বন। বর্তমান সময়টাই ইন্টারনেট নির্ভর। বিশ্ববিদ্যালয়ের এডমিশন ফর্ম থেকে শুরু করে বিসিএস এর ফর্ম, যেকোনো ধরনের নিবন্ধন, অনলাইন কেনাকাটা, সোস্যাল নেটওয়ার্কিং, গবেষনা জার্নাল অনুসন্ধান সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজে মানুষ সাহায্য নিচ্ছে ইন্টারনেট দুনিয়ার। এ চাহিদাকে কাজে লাগিয়ে সাইবার ক্যাফে হতে পারে একটি ঝুঁকিবিহীন আদর্শ স্টার্ট-আপ ব্যবসায়।


কেন ঝুঁকি কম

  • একটি সাইবার ক্যাফের পরিচালন খরচ অন্যান্য ব্যবসার তুলনায় খুবই কম। শুধুমাত্র বিদ্যুৎ বিল এবং ইন্টারনেট বিল ছাড়া অতিরিক্ত খরচ দিতে হয় না সাধারনত। আপনার কম্পিউটার সম্পর্কে সাধারণ ধারনা থাকলে ছোটখাটো ত্রুটি নিজেই সারিয়ে নিতে পারবেন। তাই এ ব্যবসায় পরিচালনায় ঝুঁকি কম বলেই ধরা হয়।

কীভাবে শুরু করবেন

  • প্রথমে দোকানের জন্য নির্বাচন করতে হবে একটি জনবহুল জায়গা যেখানে লোকজনের আনাগোনা থাকবে পর্যাপ্ত পরিমাণ। ব্যস্ততম এলাকায় দোকান নেওয়ার সুবিধা হচ্ছে বিভিন্ন বয়সী মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহারের জন্য সবসময়ই দোকানে ভীড় করবে। মনে রাখতে হবে, আপনি যত বেশি মানুষকে সার্ভিস দিবেন, ততই আপনার মুনাফা ভালো করার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।

কী কী লাগবে

  • চার-পাঁচটি কম্পিউটার, ইন্টারনেট সংযোগ, সাথে নিজের জন্য একটি ল্যাপটপ অথবা কম্পিউটার দিয়ে শুরু করতে পারেন। কম্পোজ, টাইপিং সার্ভিস এবং ডকুমেন্ট প্রিন্টের জন্য রাখতে পারেন একটি কালার প্রিন্টার এবং স্ক্যানার। ধীরে ধীরে সময় এবং ব্যবসায়ের অবস্থা বুঝে বাড়িয়ে নিতে পারেন পিসির সংখ্যা।

পুঁজি কেমন হবে

  • ছোটখাটোভাবে শুরু করতে চাইলে প্রাথমিক অবস্থায় আড়াই থেকে তিন লাখ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে ব্যবসার পিছনে। তবে এলাকা-ভিত্তিক এবং পরিকল্পনা ভেদে বিনিয়োগের পরিমাণ কম বেশি হতেই পারে।

Sharing is caring!

Leave a Comment